চরফ্যাসনে ইমামকে মারধরের অভিযোগে ফিরোজ হাজী আটক অসহায় নারীকে নির্যাতনের অভিযোগে ঝালকাঠির চপলেরের বিরুদ্ধে মামলা ! বরিশালে নগরীতে আ’লীগ নেতার ভবনে চাকুরীর প্রলোভনে জিম্মি করে দেহব্যবসা ! ডিবির অভিযানে আটক-৩, ২ নারী উদ্ধার প্রধানমন্ত্রীর দেয়া সাংবাদিকদের জন্য প্রনোদনা বরিশালে সুষম বন্টন হওয়া উচিত ছিলো বরিশাল পলাশপুরে পিতা ধর্ষণ করলো মেয়েকে ! মঠবাড়িয়ায় স্বামী স্ত্রী ও সন্তানের রহস্যজনক মৃত্যু, লাশ উদ্ধার পবিত্র ঈদ-উল আযাহা উপলক্ষে ১০নং ওয়ার্ডবাসীকে শুভেচ্ছা জানালেন কাউন্সিলর এটিএম শহিদুল্লাহ কবির ঈদের আনন্দ করতে গিয়ে যেন করোনার প্রকোপ বৃদ্ধি না পায় এজন্য সবাইকে সর্তক থাকতে হবে, বিএমপি কমিশনার প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ দুলারহাট বন্ধু ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে হত দরিদ্র, সুবিধা বঞ্চিত নারী ও শিশুদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ

আমার ছেলেকে পঙ্গু করে দিতে চেয়েছিলো বরিশাল রেঞ্জের কনস্টেবল সাইফুল

সংবাদ সম্মলনে আলআমিনের বাবার দাবী
তার ছেলেকে পঙ্গু করে দিতে চেয়েছিলো বরিশাল রেঞ্জের কনস্টেবল সাইফুল……!!!

নিজস্ব প্রতিবেদক : বরিশাল রেঞ্জের পুলিশ কনস্টেবল সাইফুল ইসলাম (ব্যাজ নং ১৭/৭৬) কতৃক ঝালকাঠি জেলার নলছিটি থানা এলাকার আলামিন নামের এক যুবকের উপর হত্যার উদ্বেশ্যে হামলা ও নগদ টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগে বরিশাল রেঞ্জের ডি.আই.জি বরাবর অভিযোগ এবং সংবাদ সম্মেলন করেন হামলার শিকার যুবকের বাবা সোহরাব শরিফ ও স্ত্রী রুপা বেগম।

গতকাল হামলার শিকার আল আমিন’য়ের পরিবারের পক্ষ থেকে আলআমিনের বাবা সোহরাব শরীফ সংবাদ সম্মেলনে জানায় গত বেশ কয়েক বছর যাবৎ নলছিটি থানার বিন্দুঘোষ গ্রামের প্রতিবেশি নুর ইসলামের হাওলাদারের সাথে পৈত্তিক সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ চলছিল।

চলতিবৎসর বছরের ১০ এপ্রিল জোর করে নুর ইসলাম আমাদের পুকুরে মাছ ছাড়তে আসলে আমরা বাধা দিলে নুর ইসলামের স্ত্রী আমাদের পরিবারের ৭জনের বিরুদ্বে নলছিটি থানায় একটি ষড়যন্ত্র মূলক মিথ্যা মামলা দেয়। আমরা আদালতকে সম্মান করে আত্বসমার্পন করলে আদলত আমাদের প্রতি খুশি হয়ে চলতি মাসের ৭তারিখ আমাদেরকে জামিন দেয়। জামিনো আসার পর থেকে নুর ইসলাম তার দলবল নিয়ে আমাদের আশে পাশে ঘুরতে থাকে এবং ভিবিন্ন ভাবে হুমকি ধামকি দেয়। সর্ব শেষ গত ৮তারিখ আমার ছেলে আলআমিন আমার বোনের বাড়ি বেড়াতে যায়।

এবং ৯তারিখ আমার বোনের বাড়ি থেকে কোরবানির গরু ক্রয়ের উদ্বেশ্যে নগদ ৫০ হাজার টাকা নিয়ে বাড়ি রওয়ানা দিলে পাওতা থেকে বিহংগল গ্রামে পৌছালে আমার ছেলেকে ৪টি মটর সাইকেলে করে পুলিশ পরিচয়ে সন্ধা ৬টার সময় বরিশাল রেঞ্জের কনস্টেবল সাইফুল ইসলাম (ব্যাচ নং- ১৭/৭৬) সহ কয়েকজন সন্ত্রাসী তুলে এনে ভোলা রোডের দক্ষিন পাশের একটি বিল্ডিংয়ের নিচে নিয়ে আসে। পরে আমার ছেলে আলআমিনের হাত, চোখঁ, ও মুখ বেধে লোহার রড ও ইট দিয়ে মাথা ও হাতে পায়ে আগাত করে। এরপর তারা আমার ছেলের পকেটে থাকা নগদ ৫০হাজার টাকা নিয়ে যায়। আহত আলআমিন এখন মূমর্শ অবস্থায় বরিশাল শেরে-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে। বরিশাল রেঞ্জের কনস্টেবল সাইফুল ইসলাম (ব্যাচ নং- ১৭/৭৬) এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনার বিচার চেয়েছেন অসহায় আলামিনের পরিবার।

মুজিববর্ষ