বরিশালে পলাশপুরে রাতের আধাঁরে গৃহবধূর বসতঘরে আগুন! এই বৃষ্টি দিন ! প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক মোঃ শামীম বিশ্বাস বরিশাল জেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ নাজমূল হুদার আবেগঘন ঈদ শুভেচ্ছা বার্তা পিতার আদর্শ বুকে ধারণ করে এগিয়ে যাচ্ছেন আ-নেতা তৌহিদুল ইসলাম বাকেরগঞ্জে অসহায় মানুষের পাশে মোঃ শামীম বিশ্বাস বরিশালে সরকারি নির্দেশ অমান্য করায় ক্রেতা -বিক্রেতাকে জরিমানা পশ্চিম গগনে বাঁকা চাঁদ দেখলেই পবিত্র ঈদুল ফিতরের ঈদ অসহায় কর্মহীনদের পাশে দাড়িয়ে নজর কেড়েছে ছাত্রলীগ নেতা রাসেল

করোনা পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়া পর্যন্ত নগরীজুড়ে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে- মেয়র সাদিক

আল আমিন গাজী : মহামারি করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে বরিশাল নগরীতে কর্মহীন অসহায় পরিবারের মাঝে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কাজ অব্যাহত রয়েছে। এতে নেতৃত্ব দিতে দেখা গেছে বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা নিরব হোসেন টুটুলকে।  বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর উদ্যোগে ও সরাসরি তত্বাবধানে আজ বুধবার তৃতীয় দিনে মত নগরীর রসুরপুর কলোনীর নিম্ন আয়ের প্রায় দেড় হাজার পরিবারের মাঝে  খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হয়েছে।

এছাড়া গত মঙ্গলবার নগরীর ১১নং ওয়ার্ড স্টেডিয়াম সংলগ্ন কলোনীতে প্রায় ১৩শ পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী হিসেবে চাল, ডাল ও আলু বিতরণ করা হয়েছে।

সিটি কর্পোরেশন সূত্র জানায়- শহরের অসহায় ও দরিদ্র মানুষের মাঝে চাল, ডাল, আলুসহ ইত্যাদি খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিতে রোববার থেকে প্রস্তুতি শুরু করে। গত সোমবার সকালে ৬টি ট্রাকভর্তি করে খাবারগুলো শহরের বিভিন্নপ্রান্তে পৌছে দেওয়াসহ মাইকিং করে মানুষদের ডেকে হাতে তুলে দেওয়া হয়। বিশেষ করে রসুলপুর, ভাটারখাল ও আব্দুল রাজ্জাক (কেডিসি) কলোনী, পলাশপুর কলোনীসহ প্রতিটি বস্তিকে টার্গেট করে স্ব-স্ব স্থানে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেয়া হবে।

এদিকে বরিশাল মহানগর  আওয়ামীলীগ নেতা নিড়ব হোসেন টুটুল বরিশাল নিউজ ২৪কে জানান, আজ রসুলপুর কলোনীতে  ভাড়াটিয়া থেকে শুরু করে  প্রায় ১৫শ ব্যাগ খাদ্য সমগ্রী দেয়া হয়েছে। প্রতি পরিবারকে ১০ কেজি চাল, ৫ কেজি আলু ও ২ কেজি মসুরী ডালসহ খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হচ্ছে। প্রতিদিনের মত আগামীকাল নগরীর পলাশপুর ,কলাপট্টি ও শিশু কলোনীতে দেয়া হবে । তিনি আরো জানান, পর্যায়ক্রমে নগরীর প্রতিটি এলাকায় খাদ্য সামগ্রী পৌছে দেয়ো হবে। তাছাড়া মেয়রের নির্দেশনার আলোকে ঘরবন্দি দরিদ্র মানুষকে খাদ্যসামগ্রী দেওয়ার প্রক্রিয়া গত সোমবার কেডিসি রাজ্জাক স্মৃতি কলোনীতে প্রায় ১২শ  পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী দিয়ে এ কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা মেনে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে এখন থেকে প্রতিনিয়ত এভাবে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে। এমনকি কাউকে এসে নিতে হবে না, নাগরিকদের বাসায় বাসায় খাবার পৌঁছে দেবে সিটি কর্পোরেশনের কর্মীরা।

অপরদিকে সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে কর্মহীন অসহায় পরিবারের মানুষের দুঃখ-দুর্দশা লাঘবে সম্ভব সবধরণের সহযোগিতার সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া হবে। জনসাধারণের নিরাপদে ঘরে থাকা নিশ্চিত করতে এসব খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়া পর্যন্ত নগরজুড়ে এ সহায়তা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

সূত্রমতে, বিতরন করা খাদ্য সামগ্রী মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর নগরীর কালিবাড়ী রোডস্থ সেরনিয়াবাত ভবনের পিছনের অংশের খোলা মাঠে বসে প্যাকেটজাত করা হয়। এ কাজে বিসিসির কর্মচারী ও আওয়ামী লীগের কর্মীরা অংশগ্রহন করেন।

এদিকে দেশের এই সংকটময় মুহূর্তে মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর নেয়া উদ্যোগের ফলে কর্মহীন মানুষের মুখে হাসি ফুটেছে। সহায়তা বাড়ী বাড়ী গিয়ে পৌঁছে দেয়ায় তারা মেয়রসহ অন্যান্য সকলকে ধন্যবাদ জানান। খাদ্য সহায়তা প্রদানকালে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, বিসিসির কর্মকর্তা ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থাকছেন।

মুজিববর্ষ