জনপ্রতি ১২ কেজি পেঁয়াজ না নিলে দিচ্ছেন না তেল, চিনি ও ডাল! মুলাদীতে সার্চ,সৌল,সয়েল নামে শিল্পকর্মের উদ্যোগে ৪ দিন ব্যাপী ১০ জন তরুন কোন ঘোষনা ছাড়াই বরিশাল নগরীতে বাস চলাচল বন্ধ রাখলো পরিবহন শ্রমিকরা বরিশালে কলেজ ছাত্রী রিপার লাশ উদ্ধার বরিশালে মসজিদের উন্নয়ন প্রকল্পের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পটুয়াখালীর বাউফলে চাঁদাবাজি বন্ধের দাবিতে অটোগাড়ি চালকদের থানায় অবস্থান ঝালকাঠিতে ৪১ টি বেইলি ব্রিজ ঝুঁকিপূর্ণ! পোর্টরোড এলাকা থেকে ২৮৮ বোতল ফেন্সিডিলসহ মাদক বিক্রেতা আটক বরিশালে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণে ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্কুলছাত্রী বরিশালে থ্রিহুইলার ও কাভার্ডভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষ, আহত ৬

sarjan faraby

প্রকাশিত সংবাদের ভিন্নমত

গত ১২ই জানুয়ারী বরিশালের বিভিন্ন অনলাইন পোর্টাল ও ১৩ জানুয়ারী স্থানীয় পত্রিকায় বহুমূখি কাঁচাবাজার মানিকের চাঁদাবাজী শিরোনামটি আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। মূলত আমি কোন চাঁদাবাজী করি না। কষ্ট করে সংসার চালাই।

প্রকৃত পক্ষে দেশের বিভিন্ন পান্ত থেকে সবজি নিয়ে আসা বিভিন্ন সবজিবাহী যানবাহন সারারাত কাচাঁবাজারে পাহাড়া দেই। কারণ কাঁচাবাজারে পথ শিশুরা গাড়ি থেকে সবজি চুরি করে,ভ্যানগাড়ি,রিক্সা চুরি করে,ছাগলে সবজি খায় যাতে নানা ভোগান্তিতে পড়তে হয় পাইকারদের।

তাই পাইকারী ব্যবসায়ীদের মালামাল ও সবজি রাত জেগে পাহাড়া দিয়ে তাই সকালে পাইকারীরা ৫ থেকে ১০টাকা করে আমাকে খুশি হয়ে দেয়। আমি কারো কাছ থেকে জোড় করে টাকা নেই না। সারারাত কষ্ট করি তাই দশপাঁচ টাকা পাই।আর এই টাকা দিয়েই আমার সংসার চলে। কিন্তু সংবাদের আমাকে নিয়ে যা লেখা হয়েছে তা মিথ্যা বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। আমি প্রায় ৮/১০ বছর যাবৎ কাঁচাবাজারে  কাজ করি। তাছাড় বাজারের সভাপতি বা সম্পাদকের এ নিয়ে কোন মন্তব্য বা অভিযোগ নাই।

একটি পক্ষ আমাকে সমাজে ও রাজনৈতিক ভাবে হেয়পতিপন্ন করার জন্য সাংবাদিক ভাইদের ভুল ও মিথ্যা্ তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রকাশ করিয়েছে।

আমি উক্ত সংবাদের তীব্রনিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

নিবেদক
মানিক মিয়া, 
বহুমূখি সিটি পাইকারী কাঁচাবাজার বরিশাল।

মুজিববর্ষ