১০নং ওয়ার্ড আ-লীগের উদ্যােগে নানা আয়োজনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জম্মদিন পালিত হুমকি বাস্তবে রুপ, শেষ পর্যন্ত রিয়াজের বাড়ি দখলে নিলো স্বীকৃত হত্যাকারী লিজা! বরিশালে ইউপি নির্বাচনকে ঘিরে এখনই মাঠ গরম করছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা বরিশাল কর্নকাঠিতে ভেকু মেশিনে নদী খাচ্ছে লোকমানের এম.এস.বি ব্রিকস! ভিডিও সহ বরিশালে পলাশপুরের শুক্কুর ও চাঁদপুরার লিপি জনতার হাতে আপত্তিকর অবস্থায় আটক! অতঃপর বরিশালে ১২কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী ডিবি পুলিশের খাঁচায়! বরিশালে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে স্কুল ছাত্রের ঘুষিতে মৃত্যু গাড়ি চালকের বাকেরগঞ্জের ভরপাশায় অজ্ঞাত শিশুর মরদেহ উদ্ধার বরিশালে সেই রানা আবারো বেপরোয়া! বরিশালের চরামদ্দী ইউনিয়নে ইউপি নির্বাচনে সিগন্যাল পেয়েছেন নতুন মুখ মঈন!

বরিশালে আলহাজ্ব দলিল উদ্দিন স্কুলে মার্কসিট ও প্রশংসাপত্র দেওয়ার নামে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অর্থ আদায়,ভিডিও সহ

 

https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=168218031432963&id=100047343009429

ইমরান হোসেন / আল আমিন গাজী: বরিশাল নগরীর ৫নং ওয়ার্ডে অবস্থিত আলহাজ্ব দলিল উদ্দিন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে সরকারী আইনকে বৃদ্বাঙ্গুলী দেখিয়ে এসএসসি পরীক্ষায় উত্তিন্ন শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে মার্কসিট ও প্রশংসাপত্র দেওয়ার নাম করে ৭শ থেকে ১হাজার টাকা করে হাতিয়ে নিচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

যদি কোন শিক্ষার্থী ধার্যকৃত এই টাকা দিতে অস্বিকার করে তবে তাদের মার্কসিট ও প্রশংসা পত্র আটকে রাখা হয়।

বিদ্যালয় সূত্রে জানাযায়, গত বছর এই বিদ্যালয় থেকে ১শ ও বেশি শিক্ষার্থী এসএসসি পরিক্ষা দিয়ে উত্তির্ন হয়। যাদের প্রায় সকলের কাছ থেকেই মার্কসিট ও প্রশংসাপত্র দেওয়ার নাম করে ৭শ থেকে ১হাজার টাকার করে নেওয়া হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী জানায় প্রধান শিক্ষক নূরুল ইসলাম স্কুলে এই নিয়ম চালু করেছে। ১হাজার টাকা না দিলে আমাদের জরুরী কাগজ পত্র আটকে দেওয়া হয়। এই টাকার কোন রসিদও আমাদের দেওয়া হয়না বলে জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। এদিক আইনে শুস্পস্ট ভাবে বলা আছে এসএসসি পরীক্ষায় উত্তির্ন কোন শিক্ষার্থীর কাছ থেকে মার্কসিট ও প্রশংসা পত্র বাবদ কোন টাকা নেওয়া যাবেনা। শুধু তাই নয়, শিক্ষা আইনে আরো উল্লেখ আছে যে শিক্ষার্থীর কাছ থেকে প্রতিষ্ঠান কোন টাকা নিলে অবশ্যই শিক্ষার্থীকে সেই টাকার রসিদ দিতে হবে। তবে এসকল কোন আইনের কোন তোয়াক্কাই করেনা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: নূরুল ইসলাম।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সত্যতা জানতে বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে গিয়ে দেখা যায় অফিস সহকারী হুমায়ন কবির প্রতি শিক্ষার্থীর কাছ থেকে মার্কসিট ও প্রশংসাপত্র দেওয়ার নামে ৭শ থেকে ১হাজার টাকা করে নিচ্ছে। কেন এই টাকা নেওয়া হচ্ছে জানতে চাইলে অফিস সহকারী হুমায়ূন কবির জানান, প্রতিমাসে ৫/৬ জন শিক্ষকের বেতন দেওয়ার জন্য এই বাড়তি টাকা নেওয়া হয়। তবে এই টাকার কেন রসিদ দেওয়া হয়না ? জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি নিয়ে প্রধান শিক্ষকের সাথে কথা বলার অনুরোধ জানান।

প্রধান শিক্ষক মো: নূরুল ইসলামের কাছে মার্কসিট ও প্রশংসা পত্র দেওয়ার নামে শিক্ষার্থীর কাছ থেকে কেন এতো টাকা রাখা হয়, জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা ১হাজার না ৭শ টাকা করে রাখি। কোন আইনে এই টাকা রাখার বিধান আছে জানতে চাইলে তিনি কোন সঠিক উত্তর দিতে পারননি।

এদিকে বিষয়টি নিয়ে আলহাজ্ব দলিল উদ্দিন বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি রিয়াজ-উল-কবির’র সাথে এ বিষয় আলাপকালে তিনি জানান, টাকা নেয়া সম্পর্কে আমার ধারনা নাই। আমি জেনে দেখছি।

এ বিষয় বরিশাল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মো: ইউনুস জানান, কোন শিক্ষার্থীর মার্কসিট কিংবা প্রশংসাপত্র দেওয়ার নামে একটি টাকা নেওয়ার ও নিয়ম নেই। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য আলহাজ্ব দলিল উদ্দিন প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় ইতিপূর্বে বিভিন্ন দূর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে।
(প্রতিবেদন চলমান- ০১)

মুজিববর্ষ