চাঁদপাশায় পূর্বের শত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় নারীসহ আহত – ৩ চরফ্যাসনে ইমামকে মারধরের অভিযোগে ফিরোজ হাজী আটক অসহায় নারীকে নির্যাতনের অভিযোগে ঝালকাঠির চপলেরের বিরুদ্ধে মামলা ! বরিশালে নগরীতে আ’লীগ নেতার ভবনে চাকুরীর প্রলোভনে জিম্মি করে দেহব্যবসা ! ডিবির অভিযানে আটক-৩, ২ নারী উদ্ধার প্রধানমন্ত্রীর দেয়া সাংবাদিকদের জন্য প্রনোদনা বরিশালে সুষম বন্টন হওয়া উচিত ছিলো বরিশাল পলাশপুরে পিতা ধর্ষণ করলো মেয়েকে ! মঠবাড়িয়ায় স্বামী স্ত্রী ও সন্তানের রহস্যজনক মৃত্যু, লাশ উদ্ধার পবিত্র ঈদ-উল আযাহা উপলক্ষে ১০নং ওয়ার্ডবাসীকে শুভেচ্ছা জানালেন কাউন্সিলর এটিএম শহিদুল্লাহ কবির ঈদের আনন্দ করতে গিয়ে যেন করোনার প্রকোপ বৃদ্ধি না পায় এজন্য সবাইকে সর্তক থাকতে হবে, বিএমপি কমিশনার প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

বরিশালে ফাগুন আর ভালোবাসার স্রোতে ফুলের বাজারে ‘আগুন’

বরিশাল নিউজ২৪ ডেস্ক: মাঘের বিদায় আজ। আগামীকাল (১৪ ফেব্রুয়ারি) ফাল্গুন মাসের প্রথম দিন। বসন্তের এ আগমনী দিনেই এবার পালিত হবে বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। এ অবস্থায় লাল ও হলুদিয়াসহ নানা রঙের ফুলে সেজেছে বরিশালের ফুলের দোকান। ফুল কিনতে ভিড়ও শুরু হয়ে গেছে। চাপ বেশি হওয়ায় বিক্রেতারা ফুলের দামও বাড়িয়ে দিয়েছেন তিনগুণ, অভিযোগ ক্রেতাদের।

বৃহস্পতিবার দুপুরে বরিশালের সদররোড ফুলের আড়ৎ ও দোকান ঘুরে দেখা যায়, খুচরা বিক্রেতারা ফুলের মালা তৈরি করছেন। তৈরি মালা ও গোলাপসহ বিভিন্ন জাতের ফুল বিক্রি করছেন। অনেকে আজকেই বাসন্তী রঙের শাড়ি পরে ফুলের দোকানে আসছেন। ফুল কিনছেন।

সুমন নামের এক ক্রেতা বলেন, ‘ভালোবাসা দিবস ও বাড়িতে বিয়ে উপলক্ষে ফুল কিনতে এসেছিলাম। আগে ফুলের যে দাম ছিল, তারচেয়ে দুই থেকে তিনগুণ বেমি দাম চাচ্ছেন দোকানদাররা। সেজন্য একটু হিমশিম খাচ্ছি, ফুল কীভাবে কিনব। কারণ, যে বাজেট ছিল, তাতে কুলাচ্ছে না। তারপরও কিছু করার নেই। অল্প হলেও ফুল নিতে হবে।’

বৃহস্পতিবার দুপুরে তিনি বরিশালে আড়তে ফুল কিনতে আসেন।মামুন বলেন, ‘আগামীকাল বসন্তবরণ ও ভ্যালেন্টাইনস ডে। এদিন অনেক কিছুর প্রয়োজন হবে। তবে স্বাভাবিকের চেয়ে ফুলের দাম আজকে অনেক বেশি। কোনো কোনো সময় ১০০টি লাল গোলাপ পাইকারিতে ৩০০ থেকে ৪০০ টাকায় পাওয়া যায়। আজকে ১০০টি গোলাপ মানভেদে ৮০০, ১ হাজার, ১,২০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আগামীকাল পর্যন্ত এরকম চড়া দাম থাকবে। তারপর আবার স্বাভাবিক হয়ে যাবে।’

ছোট এক টুকরিতে করে ফুলের মালা বানিয়ে তা বিক্রি করছিলেন জ্যোৎস্না নামের এক বৃদ্ধা। তিনি বলেন, ‘ফুল বিক্রি বেশ ভালো। যার কাছ থেকে যেমন পাচ্ছি, তেমন দামে ফুল বিক্রি করছি।’

ফুলের দাম বেশি হলেও তেমন ক্রেতা মিলছে না বলে দাবি করেন সিরাজ নামে এক খুচরা বিক্রেতা। তিনি বলেন, ‘গত বছরের তুলনায় এবার ফুল কম বিক্রি হচ্ছে। তবে ফুল বিক্রির প্রকৃত পরিস্থিতি আজ বিকেলে বোঝা যাবে।’

যদিও বরিশালের ফুলের আড়তদার মো. শাহ আলম বলেন, ‘আজকে ফুল বিক্রির অনেক চাপ। গতকাল রাত থেকে চাপ শুরু হয়েছে। গতকাল সারারাত বিক্রি হয়েছে। আজ বেলা ১১টার পর থেকে একটি মাত্র আড়ত থেকে ফুল বিক্রি হচ্ছে। সন্ধ্যার পর অন্যান্য আড়তও ফের চালু হবে। সারারাত বিক্রি হবে।’

মুজিববর্ষ