চরফ্যাসনে ইমামকে মারধরের অভিযোগে ফিরোজ হাজী আটক অসহায় নারীকে নির্যাতনের অভিযোগে ঝালকাঠির চপলেরের বিরুদ্ধে মামলা ! বরিশালে নগরীতে আ’লীগ নেতার ভবনে চাকুরীর প্রলোভনে জিম্মি করে দেহব্যবসা ! ডিবির অভিযানে আটক-৩, ২ নারী উদ্ধার প্রধানমন্ত্রীর দেয়া সাংবাদিকদের জন্য প্রনোদনা বরিশালে সুষম বন্টন হওয়া উচিত ছিলো বরিশাল পলাশপুরে পিতা ধর্ষণ করলো মেয়েকে ! মঠবাড়িয়ায় স্বামী স্ত্রী ও সন্তানের রহস্যজনক মৃত্যু, লাশ উদ্ধার পবিত্র ঈদ-উল আযাহা উপলক্ষে ১০নং ওয়ার্ডবাসীকে শুভেচ্ছা জানালেন কাউন্সিলর এটিএম শহিদুল্লাহ কবির ঈদের আনন্দ করতে গিয়ে যেন করোনার প্রকোপ বৃদ্ধি না পায় এজন্য সবাইকে সর্তক থাকতে হবে, বিএমপি কমিশনার প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ দুলারহাট বন্ধু ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে হত দরিদ্র, সুবিধা বঞ্চিত নারী ও শিশুদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ

বরিশালে ৪ বছরের শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ, অভিযুক্তের পরিবার বলছে ষড়যন্ত্র

লিটন বায়েজিদ,বরিশালঃ বরিশাল সদর উপজেলার চরবাড়িয়া ইউনিয়নের ৪ নং সাপানিয়া ওয়ার্ডের বাসিন্দা ইউসুফ (৫০) ফকিরের বিরুদ্ধে ৪ বছরের শিশুকে ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগ অতপর মামলা দায়ের, মামলা নং১০/২০। তবে অভিযুক্তের পরিবারের দাবি তাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে হয়রানির চেষ্টা চলছে। সরেজমিনে গেলে সাংবাদিকদের দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ভুক্তভোগির খালা জেসমিন বেগম বলেন তার বোনের মেয়ে ইসরাত জাহান নুসাত (৪) পিতা আবুল কালাম, বাড়ি রহমতপুর, তার বাসায় কিছুদিন আগে বেড়াতে আসে বিগত ২৬ জুন শুক্রবার তাদের বাড়ির দক্ষিণ দিকে অবস্থিত একটি স্কুলের পুকুরে গোসল করতে গেলে অভিযুক্ত ইউসুফ ফকির মেয়েটিকে ডাক দিয়ে তার কোলে নেয় এবং গায়ে পরিহিত জামা খোলার চেষ্টা করে তাৎক্ষণিকভাবে স্থানীয় ইমন নামে এক যুবক দেখে ফেললে মেয়েটিকে রেখে চলে যায়। পরে ভুক্তভোগীর পরিবার সারাদিন কাউকে না জানিয়ে রাতে কাউনিয়া থানায় ইউসুফ ফকিরের নামে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করে। স্থানীয় প্রতিনিধিদের বিষয়টি জানিয়েছে কিনা জানতে চাইলে ভুক্তভোগির খালা বলে স্থানীয় কাউকে আমরা জানায়নি। আমরা আইনের আশ্রয় নিয়েছি। অন্যদিকে অভিযুক্ত ইউসুফ ফকিরকে বাড়িতে পাওয়া না গেলেও তার স্ত্রী এবং মেয়ে সাংবাদিকদের বলেন ইউসুফ ফকির একজন বয়স্ক মানুষ, সে এমন কাজ করতে পারে না মেয়েটিকে সে নাতির মত দেখে। জেসমিন এর পরিবারের সাথে আমাদের জায়গা জমি নিয়ে দ্বন্দ্ব থাকায় আমাদের বিরুদ্ধে একটি নাটক সাজিয়ে ষড়যন্ত্র করে আমাদের সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করছে। এদিকে প্রত্যক্ষদর্শী ইমনকে ঘটনাটি জানতে ফোন দিলে তাকে পাওয়া যায়নি। অন্যদিকে স্থানীয়দের ভাষ্যমতে ইউসুফ ফকির এরকম কাজ করতে পারে বলে তাদের বিশ্বাস হয়না। মামলার বিষয়টি জানতে মামলার তদন্তকারী অফিসার কাউনিয়া থানার হালিমা খাতুন বলেন আমরা সরেজমিনে গিয়ে তদন্ত করেছি, আরো কিছু তদন্তের কাজ বাকি আছে, সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে দোষী ব্যাক্তিকে আইনের আওতায় আনা হবে।

মুজিববর্ষ