গৌরনদীতে নারীলোভী শিক্ষকের অপকর্ম ফাঁস! আমার ছেলেকে পঙ্গু করে দিতে চেয়েছিলো বরিশাল রেঞ্জের কনস্টেবল সাইফুল শিশু সহিংসতা বন্ধে এবং দোষিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর এনসিটিএফ এর স্বারকলিপি প্রদান বরিশালে ভুয়া সাংবাদিকের ছড়াছড়ি, যানবাহনে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের স্টিকার! সরকারী বরিশাল কলেজের নাম মুছে ফেললে কঠোর আন্দোলন বাকেরগঞ্জে লাশের মিছিল! আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে আরো কঠোর হতে হবে বিয়েতে মেয়েরাও যৌতুক নেয়! নলছিটিতে পৌর কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে জেলেদের চাল আত্মসাতের অভিযোগ বরিশালে গনপরিবহনে চাঁদাবাজী বন্ধ ও যানজট মুক্ত নগরী উপহার দিতে, ট্রাফিক পুলিশের বিশেষ অভিযান চলমান বরিশালে সড়কে যানজট নিরসনে কাজ করছেন ব্যাটারী চালিত ইজিবাইক শ্রমিক কল্যাণ সংগঠন!

বরিশাল নগরীতে ইমামের টাকায় মোতয়াল্লী ও ক্যাশিয়ারের থাবা!

ইমরান হোসেন : বিদ্যামান করোনা ভাইরাস সংক্রমন পরিস্থতিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রদত্ত বরিশাল জেলার মসজিদে ইমামদের জন্য (জন প্রতি) পাচঁ হাজার টাকা করে অনুদান দিয়েছেন। তবে একটি চক্র ইমাদের এই টাকায় ভাগ বসাতে চাচ্ছে। সাম্প্রতিক সময়ে বরিশাল নগরীর রুপাতলী ২৩নং ওয়ার্ডের আহমেদ সড়কে অবস্থিত তাজকাঠী হাওলাদার জামে মসজিদের মোতয়াল্লী বাদশা মিয়া ও ক্যাশিয়ার শাহ-আলমের বিরুদ্বে মসজিদের ইমাম হাফেজ শাহাদাত হোসেনের প্রাপ্ত অনুদানের টাকার ভাগ দেওয়ার জন্য চাপ করা হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুধু তাই নয়, প্রাপ্ত টাকা মোতয়াল্লী বাদশা মিয়া ও ক্যাশিয়ার শাহ-আলমকে দিতে অপরাগতা প্রকাশ করায় ইতিমধ্যে মসজিদের ইমাম হাফেজ শাহাদাত হোসেন’কে তার চাকরি থেকে বহিস্কার করার স্বিদ্বান্ত নিয়েছে বলে জানান ইমাম সাহেব। মসজিদের ইমাম হাফেজ শাহাদাত হোসেন জানান- আমি নিজে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের টাকা স্বাক্ষর দিয়ে আনার পরদিন থেকে মসজিদের মোতয়াল্লী ও ক্যাশিয়ার সেই টাকা তাদেরকে দেওয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করতে থাকে। আমি টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় তারা আমার সাথে খারাপ ব্যাবহার করা শুরু করে। আমি বিষয়টি কোতায়ালী মডেল থানায় অবহিত করি। এখানেই শেষ নয়, মসজিদের মোতয়াল্লী সাগরদী এলাকার বাসীন্দা বাদশা মিয়া এবং ক্যাশিয়ার শাহ-আলম আমাকে সেই টাকা তাদের কাছে দেওয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করেন। আমি ব্যাধ্য হয়ে তাদেরকে ২হাজার টাকা দিয়ে দেই। তাতেও তারা ক্ষান্ত হয়নি। হঠাৎ করে তারা আমাকে বহিস্কার করার স্বিদ্বান্ত নেয়। এদিকে অভিযোগের বিষয়ে সসজিদের ক্যাশিয়ার শাহ-আলমের কাছে জানকে চাইলে তিনি বলেন, আমার ইমাম সাহেবের উপর কোন চাপ প্রয়োগ করিনি। সে এমনিতেই খুশি হয়ে মসজিদে টাকা দিতে চেয়েছে তাই আমরা নিয়েছি। আর এটা নিয়ে আজকে (৪জুন) আমরা ২৪নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদকের সাথে বসবো। তাহলে, ইমাম সাহেব’কে কেন চাকুরি থেকে অব্যহতি দেওয়া হয়েছে ? এমন প্রশ্নের কোন সদ-উত্তর তিনি দিতে পারেনি।

এদিকে বিষয়টি নিয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশন বরিশাল বিভাগীয় কার্জালয়ের সহ:পরিচালক মো: আলম হোসেন জানান, প্রধানমন্ত্রীর অনুধানের টাকা ইমাম সাহেব’রাই পাবেন। এখানে মসজিদ কমিটির কোন প্রকার হস্তক্ষেপ গ্রহনযোগ্য নয়। (আগামী কাল থাকছে ২য় পর্ব)….

মুজিববর্ষ