সাদ্দাম হোসেন বাপ্পি’র মৃত্যুতে মোগ সুন্দার বরিশাল’র গ্রুপ পরিবারের শোক বরিশালে ওএমএস’র চাল বিতরণ জনপ্রিয় ফেসবুক গ্রুপ মোগ সুন্দার বরিশাল এর ৪র্থ বর্ষপূর্তি ও আন্দন ভোজন অনুষ্টান অনুষ্ঠিত বরিশালে কীর্তনখোলা নদীতে কোস্টগার্ডের অভিযানে ১হাজার মিটার জাল জব্দ চরবাড়িয়ায় ইউনিয়নে উপনির্বাচনে বিএনপির একক প্রার্থী মাসুদ হোসেন এগিয়ে ১০নং ওয়ার্ড আ-লীগের সাবেক সভাপতি এ্যাড. হুমায়ুন চৌধুরী প্রিন্স আর নেই, ওয়ার্ড আ-লীগের শোক নতুনধারার ধর্ষণ বিরোধী সমাবেশ ও কুশপুত্তলিকা দাহ বরিশালে বেপরোয়া মটর চালিত রিক্সা, প্রতিদিন ঘটছে দূর্ঘটনা প্রভাবশালী মহলের ছত্রছায়া ও উচ্চতর তদবিরে নগর দাপিয়ে বেড়াচ্ছে ওয়ারেন্টভূক্ত আসামী সেলিম-সালাম নলছিটি পৌর ছাত্রলীগের কমিটি গঠিত

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে উর্মি রহস্যে’র নতুন মোড়, আসামী শিক্ষক!

 শফিক মুন্সি :: জান্নাতুল নওরীন উর্মির ওপর হামলার অভিযোগ ঘটনায় নতুন মোড় নিয়েছে। গণিত বিভাগের শিক্ষক সুজিত কুমার বালাকে প্রধান আসামী করে থানায় অভিযোগ করেছে উর্মির বাবা আবদুল মান্নান মৃধা। অভিযোগে আসামী হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে আরো পাঁচ শিক্ষার্থীর নাম৷ হামলা ঘটনার ০৯ দিন পর গত সোমবার বরিশালের বন্দর থানায় এ অভিযোগ দায়ের করা হয়।

তবে এমন অভিযোগের সংবাদে বিক্ষোভে ফেঁটে পড়েছে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল শিক্ষার্থী। মঙ্গলবার দুপুরে উর্মির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ মিছিল করেছে তারা। অন্যদিকে, অভিযোগে উল্লেখ করা আসামী ও সাক্ষীদের ব্যাপারেও সৃষ্টি হয়েছে ধোঁয়াশা।

উর্মির ওপর হামলার ব্যাপারে অবগত নন এমনটাই জানিয়েছেন অভিযোগে উল্লেখ করা একাধিক সাক্ষী। আসামী হিসেবে অভিযুক্ত অনেকে কখনো উর্মিকে সামনাসামনি দেখেন নি বলেও দাবি করা হচ্ছে। উর্মির বাবার করা অভিযোগে অন্যান্য আসামীরা হলেন সমাজবিজ্ঞান বিভাগের আলীম সালেহী, হিসাববিজ্ঞান বিভাগের আরিফুল ইসলাম, আব্দুল্লাহ ফিরোজ, মোঃ হাফিজুল ইসলাম এবং আসাদুজ্জামান আসাদ।

অভিযোগ পত্রে উর্মির ওপর হামলার ঘটনায় ০২ নং সাক্ষী হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে গণিত বিভাগের শিক্ষক আব্দুল্লাহ আহমেদ ফয়সালের নাম। তিনি বলেন, “উর্মির ওপর বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গনে হামলার কোন ঘটনা সম্পর্কে আমি অবগত নই। অনুমতি ছাড়া কেন সাক্ষী হিসেবে আমার নাম উল্লেখ করা হলো সেটাও বোধগম্য নয়। গণমাধ্যমে ওর ওপর হামলার ঘটনা দেখে সহকর্মীদের সঙ্গে একদিন শুধু হাসপাতালে দেখতে যাই”।

অভিযোগ পত্রের আরেক সাক্ষী মোঃ আহসান হাবীবও একই সুরে কথা বলেন। তিনি জানান, ” অভিযোগপত্রে আমাকে সাক্ষী করা হবে সেটা আমি জানতাম না৷ অভিযোগপত্রে উল্লেখিত দিনে উর্মি আপুর ওপর কোনো হামলা হয়েছে বলেও আমি নিশ্চিত নই। তবে ০৩ মার্চ সকালে অন্য একজনের মাধ্যমে আমি জানতে পারি তার ওপর হামলা হয়েছে”।

অভিযুক্ত প্রধান আসামী সুজিত কুমার বালা অভিযোগের ঘটনা শুনে বিস্ময় প্রকাশ করেন৷ অভিযোগের ব্যাপারে মন্তব্য জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ওই ঘটনার তথ্য অনুসন্ধানে বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি কমিটি করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীও হয়তো তদন্ত করবে। তাদের কাছেই আমি আনুষ্ঠানিক বক্তব্য দেবো। তবে নিজ শিক্ষার্থীর এমন মিথ্যা অভিযোগে স্বাভাবিকভাবেই আমি অবাক হয়েছি এবং কষ্ট পেয়েছি। আরেক অভিযুক্ত আসামী মোঃ হাফিজুল ইসলাম বলেন, যেই মেয়েটি হামলার শিকার হিসেবে নিজেকে দাবি করছে তাকে আমি চিনি না। আমাদের সামনাসামনি কোনোদিন দেখাও হয় নি। অভিযোগ পত্রে যেই সময় এবং দিনের কথা উল্লেখ করা হচ্ছে তখন আমার জন্মদিন ছিল এবং বন্ধুদের নিয়ে উৎযাপনে ব্যাস্ত ছিলাম “।

অভিযোগপত্রের সূত্রে জানা যায়, গত ১লা মার্চ পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে সুজিত কুমার বালা নির্দিষ্ট সময়ের পূর্বেই উর্মির উত্তরপত্র নিয়ে নেয়। পরবর্তীতে পরীক্ষার হল থেকে বের হলে ৮/১০ জন যুবক মুখে মাস্ক পরিহিত অবস্থায় তার ওপর হামলা করে। এরপর তার মুখে কাপড় বেঁধে উপাচার্য ভবনের পাশে নিয়ে কাঁটা কম্পাস দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে খুঁচিয়ে নির্যাতন করা হয়।

অভিযোগপত্রে আরো উল্লেখ করা হয়, উপাচার্য ভবনের পাশে তাকে নির্যাতনের সময় পার্শ্ববর্তী শেখ হাসিনা হলের অনেকে তা অবলোকন করেছে। অন্যদিকে, উর্মির পক্ষ থেকে করা এমন অভিযোগের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার বেলা তিনটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মুখে বরিশাল – পটুয়াখালী মহাসড়কে মিছিলটি সম্পন্ন হয়৷মিছিল পূর্ব সমাবেশে বক্তারা বলেন, উর্মি একটি মিথ্যা – মনগড়া কাহিনি সাজিয়ে পুরো বিশ্ববিদ্যালয়কে নেতিবাচকভাবে উপস্থাপন করছে৷ সে তাঁর রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের জন্য বাস্তবতা বিবর্জিতভাবে নিরপরাধ শিক্ষক – শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে৷ বক্তারা আরো বলেন, দ্রুততর সময়ের মধ্যে উর্মিকে নিজের ভুল স্বীকার করে অভিযোগ প্রত্যাহার করে নিতে হবে। অন্যথায় তাকে সাধারণ শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করবে। সমাবেশে শিক্ষার্থীরা আগামী বুধবার সকাল ১১ টায় উর্মির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সমাবেশের ঘোষনা দেন। মিছিল পূর্ব সমাবেশে বক্তব্য রাখেন গণিত বিভাগের ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মহিউদ্দিন আহমেদ সিফাত, হিসাববিজ্ঞান বিভাগের স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থী সৈয়দ রুমান ইসলাম প্রমুখ।

মুজিববর্ষ