বরিশালে পলাশপুরে রাতের আধাঁরে গৃহবধূর বসতঘরে আগুন! এই বৃষ্টি দিন ! প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক মোঃ শামীম বিশ্বাস বরিশাল জেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ নাজমূল হুদার আবেগঘন ঈদ শুভেচ্ছা বার্তা পিতার আদর্শ বুকে ধারণ করে এগিয়ে যাচ্ছেন আ-নেতা তৌহিদুল ইসলাম বাকেরগঞ্জে অসহায় মানুষের পাশে মোঃ শামীম বিশ্বাস বরিশালে সরকারি নির্দেশ অমান্য করায় ক্রেতা -বিক্রেতাকে জরিমানা পশ্চিম গগনে বাঁকা চাঁদ দেখলেই পবিত্র ঈদুল ফিতরের ঈদ অসহায় কর্মহীনদের পাশে দাড়িয়ে নজর কেড়েছে ছাত্রলীগ নেতা রাসেল

মঠবিড়িয়ায় বাল্য বিবাহের হিড়িক

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধিঃ ১৩ বছরের রুপা আক্তার।স্হানীয় একটি মাদ্রাসার ৭ম শ্রেনীর ছাত্রী সে।বাবা সৌদি প্রবাসী রিপন গাজী।বিবাহ হয় একই এলাকার আবদুস সাত্তারের ছেলে রিমনের সাথে। প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়েই সেরে ফেলে বিবাহের কাজ। তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে অভিভাবকরা শুরু করে তালবাহানা। কখনো বলে বিবাহ হয় নাই,কখনো বিবাহ ঠিক হয়েছে কিন্তু বিবাহ হয় নাই আবার কখনো আমার মেয়ে আমি বিবাহ দেব -যে যা করতে পারে করুক বলে হুমকি।

কচুবাড়িয়া গ্রামের জলিলের মেয়ে মেরিনা।বিবাহ হয় একই গ্রামের ম্যাদা মালেকের ছেলে জসিমের সাথে।স্হানীয় হাই স্কুলের ৯ম শ্রেনীর ছাত্রী মেরিনার স্কুলে যাওয়া এখন অনেকটাই অনিশ্চিত।

পার্শ্ববর্তি ভাইজোড়া গ্রামের সিদ্দিক খলিফার মেয়ে ছাদিয়া। বিবাহ হয়েছে মোড়েলগন্ঞ্জ রায়েন্দার ওপাড়। স্হানীয়রা যাকে বলে পশ্চিম পাড়।ছাদিয়াও স্হানীয় একটি হাই স্কুলের ৯ম শ্রেনীর ছাত্রী। পড়ার টেবিল ছেড়ে এখন শ্বশুর বাড়ির সংসার নিয়েই ব্যস্ত থাকতে হয় তাকে।

স্হানীয়রা জানান, “বাল্য বিবাহ বৃদ্ধি পাওয়ার কারনে প্রত্যান্ত অন্ঞ্চলের স্কুল পড়ুয়া মেধাবি মেয়েরাও স্কুল থেকে ঝড়ে পড়ছে।প্রশাসনের সুদৃষ্টি প্রয়োজন।”

মুজিববর্ষ