সাদ্দাম হোসেন বাপ্পি’র মৃত্যুতে মোগ সুন্দার বরিশাল’র গ্রুপ পরিবারের শোক বরিশালে ওএমএস’র চাল বিতরণ জনপ্রিয় ফেসবুক গ্রুপ মোগ সুন্দার বরিশাল এর ৪র্থ বর্ষপূর্তি ও আন্দন ভোজন অনুষ্টান অনুষ্ঠিত বরিশালে কীর্তনখোলা নদীতে কোস্টগার্ডের অভিযানে ১হাজার মিটার জাল জব্দ চরবাড়িয়ায় ইউনিয়নে উপনির্বাচনে বিএনপির একক প্রার্থী মাসুদ হোসেন এগিয়ে ১০নং ওয়ার্ড আ-লীগের সাবেক সভাপতি এ্যাড. হুমায়ুন চৌধুরী প্রিন্স আর নেই, ওয়ার্ড আ-লীগের শোক নতুনধারার ধর্ষণ বিরোধী সমাবেশ ও কুশপুত্তলিকা দাহ বরিশালে বেপরোয়া মটর চালিত রিক্সা, প্রতিদিন ঘটছে দূর্ঘটনা প্রভাবশালী মহলের ছত্রছায়া ও উচ্চতর তদবিরে নগর দাপিয়ে বেড়াচ্ছে ওয়ারেন্টভূক্ত আসামী সেলিম-সালাম নলছিটি পৌর ছাত্রলীগের কমিটি গঠিত

সব হারানো এক রাজনৈতিক অভিভাবক আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ

বিশেষ প্রতিবেদক, আসাদুজ্জামান ॥ বাংলাদেশের মানচিত্র মুছে ফেলতে এবং আওয়ামীলীগকে নিশ্চিহ্ন করতে ১৯৭৫সালের কালো রাতে ঘাতক’রা যে ৩/৪টি পরিবারকে টার্গেট করে নৃশংস হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছিলো তার একটি হলো আবুল হাসানাত আবদুল্লাহর পরিবার। আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ কে কেউ বলেন, দক্ষিন বাংলার আওয়ামী রাজনীতির অভিভাবক, আবার কেউ বলেন, তারা আওয়ামীলীগের মালিক পক্ষ। আমি বলি তারা বাংলাদেশ ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ স্বজন ও আত্মার আত্মীয়। তারাই দেশের অভিভাবক।

পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর সাথে মরনপণ যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করে যখন ক্ষমতার মসনদে বসলেন, তার কিছু দিন পরেই বিশ্বাস ঘাতকদের হাতে জীবন দিতে হয়েছে বঙ্গবন্ধুর পরিবার ও তার ঘনিষ্ঠ স্বজনদের। বাংলাদেশ নামে একটি স্বাধীণ বাংলাদেশের জন্ম দিয়ে স্ব পরিবারে জীবন দিতে হলো তাদের । যারা ভাগ্যক্রমে বেঁচে গেছেন তাদের মধ্যে অন্যতম আলহাজ আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্টের কালরাতে ঘাতকের হাতে নিহত হন বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বঙ্গবন্ধুর স্ত্রী শেখ ফজিলাতুননেছা, পুত্র শেখ কামাল, শেখ জামাল, শেখ রাসেল, শেখ কামালের স্ত্রী সুলতানা কামাল, জামালের স্ত্রী রোজী জামাল, বঙ্গবন্ধুর ভাই শেখ নাসের, এসবি অফিসার সিদ্দিকুর রহমান, কর্ণেল জামিল, সেনা সদস্য সৈয়দ মাহবুবুল হক, প্রায় একই সময়ে ঘাতকরা বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে যুবলীগ নেতা শেখ ফজলুল হক মণির বাসায় হামলা চালিয়ে শেখ ফজলুল হক মণি, তাঁর অন্ত:সত্তা স্ত্রী আরজু মণি, বঙ্গবন্ধুর ভগ্নিপতি আবুল হাসানাত আবদুল্লাহর পিতা আবদুর রব সেরনিয়াতের বাসায় হামলা করে আবদুর রব সেরনিয়াবাত, কন্যা বেবী, পুত্র আরিফ সেরনিয়াবাত, আবুল হাসানাত আবদুল্লাহর শিশু পুত্র সুকান্ত বাবু, আবদুর রব সেরনিয়াবাতের বড় ভাইয়ের ছেলে সজীব সেরনিয়াবাত এবং এক আত্মীয় বেন্টু খান কে হত্যা করা হয়।

ঐ সময়ে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন সাহানারা আবদুল্লাহ ও তার শাশুরী । জীবনের সবচেয়ে বড় ধন, পিতা-সন্তান, ভাই-বোন, ও জাতির জনকের পরিবারকে হারিয়ে ফেলায়, সবকিছু হারিয়ে ফেলেছেন তিনি।১৯৭৫সালের পরে ক্ষমতা দখল করে নিয়ে যায় চক্রান্তকারী ঐ ঘাতক’রা। শুরু হয়, যারা বেঁচে আছেন তাদের উপরে নির্মম নির্যাতন। এসব প্রতিকুল পরিবেশ মোকাবেলা করে শক্ত হাতে বৈঠা ধরে আওয়ামীলীগকে সংগঠিত করেছিলেন ফলে , প্রায় ২০ বছর পরে আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় এসেছিলো। তার পরেও জীবন দিয়ে রক্ষা করা বাংলাদেশ ও আওয়ামীলীগকে বাচিয়ে রাখতে জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে আমরন সংগ্রাম করে যাচ্ছেন ।

স্বাধীনতার পরে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ এই ৪র্থ বার ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হয়েছে। দলের জন্য যাদের কোনো রকমের ত্যাগ বা সক্রিয় রাজনীতিক ভুমিকা ছিলোনা এমন অনেকেই নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন পেয়ে একাধিবার এমপি, মন্ত্রী হয়েছেন। আবুল হাসানাত আবদুল্লাহর নিরলস শ্রমে, দক্ষিনাঞ্চলের বেশির ভাগ সংসদীয় আসনে আওয়ামীলীগ বিজয়ী হয়ে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করেছেন। বরিশাল বিভাগে বেশ কয়েকজনে মন্ত্রীর দায়িত্বও পালন করেছেন।

এ অঞ্চলের মানুষের আস্থার স্থান, রাজনৈতিক অভিভাবক আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ, সারা জীবন মানুষকে শুধু দিয়ে গিয়েছেন। দেশের জন্য যুদ্ধ করে এবং ঘাতকদের গুলিতে পিতা ও সন্তানসহ স্বজনদের হারিয়েও বাংলাদেশের মর্যাদা অক্ষুন্ন রাখতে কাজ করে যাচ্ছেন । এ অঞ্চলের সাধারন মানুষের ভালোবাসায় শিক্ত আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ’র কোনো দিন কিছু চাওয়া পাওয়ার ছিলোনা । দীর্ঘ রাজনীতিক জীবন ও টানা ৪র্থবার ক্ষমতায় থাকা সত্বেও কোনো কলংক তাকে স্পর্শ করতে পারেনি।

এমন রাজনীতিক ব্যক্তি বর্তমানে খুজে পাওয়া বিরল। মন্ত্রী হওয়ার ইচ্ছা পোষন করে কোনোদিন ক্ষমতার সাধ ভোগ করতে চাননি। আমাদের এ অঞ্চলের অনেকেই এমপি নির্বাচিত হয়ে মন্ত্রী হওয়ার জন্য জেলা থেকে কেন্দ্র পর্যন্ত লবিং ও তোষামতি করার ওপেন সিক্রেট বিষয়টি তৃণমুল কর্মীদেরও জানা। কিন্তু আবুল হাসানাত আবদুল্লাহকে কোনো লোভ স্পর্শ করতে পারেনি।

গতকাল ছিলো সব হারানো বর্ষিয়ান আওয়ামীলীগ নেতা আবুল হাসানাত আবদুল্লাহর জন্মদিন। গোটা দক্ষিনবঙ্গের সব এলাকায়, আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যালয়ে ও মসজিদে দোয়া মোনাজাত এবং মন্দির ও গীর্জায় তার জন্য বিশেষ প্রার্থনা করা হয়েছে।

তৃনমুলের ভালোবাসায় মানুষের হৃদয়ে আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ বেচেঁ থাকবেন হাজার বছর। বাংলাদেশের আলোকিত এই পরিবারের বাড়ী বরিশাল। আমরা তাই গর্বিত। তাদের বিষয় নিয়ে মন্তব্য কলাম লেখার যোগ্যতা আমার নেই। তবে মনের অভিব্যক্তি প্রকাশ করার ইচ্ছা জাগ্রত হওয়ায় আজকের এই লেখা।

মুজিববর্ষ