1. gazia229@gmail.com : admin :
আবারো বেড়েছে সয়াবিন তেল, পেঁয়াজ ও মুরগির দাম - BarishalNews24
বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ০৫:১৮ অপরাহ্ন

আবারো বেড়েছে সয়াবিন তেল, পেঁয়াজ ও মুরগির দাম

প্রতিবেদক:
  • প্রকাশকাল: বৃহস্পতিবার, ২০ মে, ২০২১
  • ৬৩ বার দেখা হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক:
ঈদ শেষ হয়েছে এক সপ্তাহ হলো। সবজি, মাছ, চালসহ কয়েকটি সবজির দাম কমলেও বেড়েছে সয়াবিন তেল, পেঁয়াজ ও মুরগির দাম।

বৃহস্পতিবার (২০ মে) রাজধানীর হাতিরপুল, নিউমার্কেট ঘুরে দেখা গেছে, সয়াবিন তেল, পেঁয়াজ, মাংস এবং সব ধরনের মুরগির দাম বেড়েছে।

ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকা কেজি দরে। লেয়ার মুরগি কেজিতে ২০ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ২৬০ টাকা। সোনালী মুরগির কেজি ২৬৫-২৭০ টাকা। গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৬০০ টাকা কেজি দরে। গত সপ্তাহে ছিল ৫৮০ টাকা। খাসির মাংসের দাম ৫০ টাকা বেড়ে এখন বিক্রি হচ্ছে ৯০০ টাকায়। তবে ডিমের দাম আগের মতই, ৯০ টাকা ডজন।

প্রায় সব চালের দাম কেজিতে ৩-৫ টাকা কমেছে। নাজিরশাইল মান অনুযায়ী ৫৮-৬৪ টাকা, মিনিকেট ৫৫-৫৮ টাকা, আঠাশ এবং সব ধরনের মোটা চাল ৪৫-৪৬ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

ডাল, সব ধরনের মশলা এবং মাছের দাম মোটামুটি স্থিতিশীল আছে। মসুরি (দেশি) ১১০ টাকা ও তুরষ্ক ৮০ টাকা, আদা (দেশি) ১০০ টাকা ও চায়না ১৪০ টাকা, রসুন (দেশি) ১০০ টাকা ও চায়না ১৪০ টাকা। পেঁয়াজের দাম বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৪৫-৫০ টাকা কেজি। সাদা চিনি ৬৫-৬৮ টাকা ও লাল চিনি ৭০-৭২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

সয়াবিন তেল লিটারে ১০-২০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। কোম্পানি ভেদে প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের আজকের বাজার মূল্য ১ লিটার ১৩৮-১৪৪ টাকা, ২ লিটার ২৭০-২৮৫ টাকা এবং ৫ লিটার ৬৬০-৬৮৫ টাকা।

সবজির দাম মোটামুটি স্থিতিশীল রয়েছে। প্রতি কেজি আলু ২০-২২ টাকা, টমেটো ৫০ টাকা, শসা ৪০ টাকা, বেগুন (লম্বা) ৩০ টাকা ও গোল ৫০ টাকা, পোটল ৩০, গাজর ৪০ টাকা, করোলা ৬০ টাকা, লাউ প্রতিটি ৫০ টাকা, কাঁচা পেঁপে ৬০ টাকা এবং কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা কেজি দরে। আর লেবুর দাম কমে আজকে হালি বিক্রি হচ্ছে ২০-৩০ টাকায়।

জ্যৈষ্ঠ মাসের কারণে বাজারে বিভিন্ন রকমের ফল পাওয়া হচ্ছে। মৌসুমের প্রথম বলে একটু বেশি দামেই বিক্রি হচ্ছে এসব ফল। বাজারে বর্তমানে তিন ধরনের আম পাওয়া যাচ্ছে। রাজশাহীর হিমসাগর বিক্রি হচ্ছে ১০০-১২০ টাকা, ল্যাংড়া ১৩০-১৪০ টাকা এবং গুটি আমের কেজি ৭০-৮০ টাকা। এছাড়া অন্যান্য ফলের মধ্যে লিচু (১০০ টি) বিক্রি হচ্ছে ৪০০ টাকা, আনারস পিস ৩০-৪০ টাকা, প্রতি পিস বাঙ্গি ৮০-১২০ টাকা, মালটার কেজি ১৫০ টাকা, কাঁচা আম ৫০ টাকা, তরমুজের সিজন প্রায় শেষ বলে দাম বেড়েছে। আকার ভেদে প্রতিটি তরমুজ ৩৫০ থেকে ৫০০ টাকা, হলুদ (থাই) তরমুজের কেজি ৪৫০-৫০০ টাকা।

প্রচণ্ড গরমের কারণে বাজারে ডাবের চাহিদা বেড়েছে। যদিও দাম অন্য সময়ের তুলনায় বেশ চড়া। প্রতিটি ডাব বিক্রি হচ্ছে ৭০-৮০ টাকা। তালের শাঁসেরও চাহিদা রয়েছে, তিন শাঁসওয়ালা একটা তালের দাম ২০-২৫ টাকা।

মাছের যথেস্ট সরবরাহ রয়েছে বাজারে। প্রতি কেজি রুই আকার ভেদে ৩৫০-৪০০ টাকা কেজি, কাতল (বড়) ৪০০ টাকা, বড় চিংড়ি ৮০০ টাকা, মাঝারি চিংড়ি ৫৫০-৬০০, ছোট চিংড়ি ৪৫০-৫০০ টাকা, নদীর মাঝারি চিংড়ি ৮০০-৯০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। পাবদা ৪৫০-৫০০ টাকা, কৈ ২০০ টাকা, মলা ৩৫০ টাকা, শিং (দেশি) ৮০০ টাকা ও চাষের ৪০০ টাকা, মাগুর ৫০০ টাকা, টেংরা ৭০০, বড় রূপচাঁদা ৯০০ টাকা এবং মাঝারি আকারের বেলে মাছের কেজি ৮০০ টাকা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© 2021 - All rights Reserved - BarishalNews24
Design and Developed by Sarjan Faraby