1. gazia229@gmail.com : admin :
এএসআই সালাউদ্দিনের বিয়ের পিঁড়িতে বসা হলো না - BarishalNews24
রবিবার, ২০ জুন ২০২১, ১২:৫৫ পূর্বাহ্ন

এএসআই সালাউদ্দিনের বিয়ের পিঁড়িতে বসা হলো না

প্রতিবেদক:
  • প্রকাশকাল: শুক্রবার, ১১ জুন, ২০২১
  • ৮৩ বার দেখা হয়েছে

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি :: ‘ইরে-বাবা, কয়রে বাবা, বাবা তুই কই। তুইতো বাড়ি আসবি বলেছিলে, লাশ হয়ে ফিরলি কেন? আমিতো তোকে লাশ হয়ে দেখতে চাইনি’। শুক্রবার (১১ জুন) রাত ৯টার দিকে মুঠোফোনে এভাবে কেঁদে কেঁদে উত্তর দিলেন চট্টগ্রামে নিহত এএসআই কাজী মো. সালাহ উদ্দিনের বাবা কাজী নাদেরুজ্জামান পাটওয়ারী। ছেলের শোকে তার কান্না কেউই থামাতে পারছে না। কান্না থামানের ভাষা খুঁজে পাচ্ছে না আত্মীয়-স্বজনরা।

জানতে চাইলে বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী নাদেরুজ্জামান পাটওয়ারী বলেন, গত পরশু আমার সঙ্গে সালাহ উদ্দিনের কথা হয়েছে। আগামী সপ্তাহে বাড়িতে আসবে বলেছিল। কিন্তু আমার সালাহ উদ্দিন লাশ হয়ে বাড়িতে ফিরেছে। তাঁরা আমার সালাহ উদ্দিনকে জীবন্ত বাড়ি ফিরতে দিল না।

নিহত এসআই সালাউদ্দিন লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার হাজিরপাড়া ইউনিয়নের দক্ষিণ জয়পুর গ্রামের বাসিন্দা। শুক্রবার বিকেলে পারিবারিক কবরস্থানে তাঁর মরদেহ দাফন করা হয়েছে। এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) মংনেথোয়াই মারমা ও চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একে ফজলুল হক উপস্থিত ছিলেন।

জানা গেছে, মাদক পরিবহনের খবরে একটি মাইক্রোবাসকে চট্টগ্রামের চান্দগাঁও থানার কাপ্তাই রাস্তার মাথায় থামার জন্য সালাহ উদ্দিন সংকেত দেয়। কিন্তু মাইক্রোবাসটি না থামিয়ে উল্টো তাকে পিষে দিয়ে চলে যায়। পরে তাকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। সালাউদ্দিন একই থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) ছিলেন। তাঁর বাবা কাজী নাদেরুজ্জামান অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কনস্টেবল।

সালাহ উদ্দিনের মামাতো বোন শাহনাজ আক্তার বিন্দু বলেন, আমার ভাইয়া প্রায় ১৫ বছর পুলিশে চাকরি করে। তার বিয়ে ঠিক হয়েছিল। তিনি বাড়িতে আসলে বিয়ের তারিখ ঠিক করার কথা ছিল। মামার সঙ্গে তাঁর শেষ বুধবার কথা হয়েছে। ভাইয়া আগামী সপ্তাহে আসবেন বলে জানিয়েছেন। কিন্তু ভাইয়াকে লাশ হয়ে ফিরতে হলো। মামার কান্না থামানো যাচ্ছে না। ভাইয়াকে যারা হত্যা করেছে, আমরা তাদের উপযুক্ত বিচার চাই।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© 2021 - All rights Reserved - BarishalNews24
Design and Developed by Sarjan Faraby