1. gazia229@gmail.com : admin :
বরিশাল চরকাউয়া খেয়াঘাটে স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করে চলছে খেয়া পারাপার - BarishalNews24
বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১, ০৪:৩৩ অপরাহ্ন

বরিশাল চরকাউয়া খেয়াঘাটে স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করে চলছে খেয়া পারাপার

প্রতিবেদক:
  • প্রকাশকাল: শনিবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২১
  • ৮৭ বার দেখা হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক::

মহামারী করোনাভাইরাস ১৯ এর দ্বিতীয় ধাপে পুরো বিশ্ব যখন করোনার ভয়াবহতায় থরথর। তার বাইরে নয় বাংলাদেশ।
প্রতিনিয়তই বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা। তাই সরকার জনগনের কথা চিন্তা করে দিতীয় ধাপে লগডাউন ঘোষণা প্রকাশ করেছে সরকার। আর লকডাউনের পরিস্থিতির জন্য সীমিত পরিসরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাত্রী নিয়ে খেয়া পারাপারের কথা থাকলেও, তা মানছেন না বরিশাল কীর্তন খোলা নদীর তীরে অবস্থিত চরকাউয়া খেয়াঘাটের মাঝিরা। অভিযোগ আছে, খেয়া পারাপারে করোনাভাইরাস কভিড ১৯ কে পুঁজি করে যাত্রীদের কাছ থেকে দ্বিগুণ ভাড়া আদায়ের রয়েছে পাহাড় সমান অভিযোগ ।

প্রতিদিন এ খেয়াঘাট থেকে হাজার হাজার মানুষ কীর্তনখোলা নদী পার হয়ে বরিশাল শহরে আসা যাওয়া করে। করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে খেয়া পারাপারের জন্য যাত্রী পরিবহনে সরকারি নির্দেশনা রয়েছে। কিন্তু এখানে যাত্রী পারাপারে জন্য চলাচলরত খেয়াগুলোতে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সীমিত পরিসরে যাত্রী পারাপার তো হচ্ছেই না, প্রতিটি খেয়ায় গাদাগাদি করে যাত্রী ওঠানো হচ্ছে। এ কারণে করোনা ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কায় যাত্রীদের মধ্যে চরম উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে।

অপরদিকে খেয়াপার হওয়া যাত্রীরা অভিযোগ করেন, সীমিত পরিসরে যাত্রী পারাপারতো হচ্ছেই না বরং আগে খেয়া পার হতে জনপ্রতি যে ভাড়া ছিল তা এখন বাড়িয়ে যাত্রীদের কাছ থেকে দ্বিগুণ ভাড়া আদায় করা হচ্ছে।

শনিবার সরেজমিনে খেয়াঘাটে গিয়ে দেখা গেছে, খেয়া পারাপার বেশির ভাগ যাত্রীর মুখে নেই কোনো মাস্ক। স্বাস্থ্যবিধি মেনে খেয়া চলাচলের কথা থাকলেও প্রতিটি খেয়া আগেরমত যাত্রীবোঝাই করে পারাপার করছে। যাত্রীদের সুরক্ষার জন্য হ্যান্ড স্যানিটাইজার কিংবা জীবাণুনাশক স্প্রে ব্যবহার করছে না খেয়ার মাঝিরা।

বিশারদ গ্রামের যাত্রী আ. সোবাহান অভিযোগ করেন, স্বাস্থ্যবিধি না মেনে খেয়াঘাটের মাঝিরা নিজেদের ইচ্ছেমতো খেয়া পারাপারের জন্য ট্রলারে যাত্রী ওঠাচ্ছেন। এমনকি জনপ্রতি ২০ টাকা থেকে শুরু করে ৫০ টাকা করে আদায় করা হচ্ছে।
সরকারের কোন কিছুই যেন তোয়াক্কা করার সময় নেই তাদের।

অভিযোগ রয়েছে বরিশাল সদর নৌ থানার কিছু পুলিশের কয়েকজন অসাধু সদস্যদের ম্যানেজ করেই চলছে এই কর্মকান্ড। তাই বিষয়টি দেখেও না দেখার ভান করছেন তারা।

তবে খেয়াঘাট কর্তৃপক্ষের দাবি, তারা সীমিত পরিসরে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই প্রতিটি খেয়ায় যাত্রী পারাপার করছেন। ভাড়া বেশি নেওয়ার বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে এর কোনো উত্তর তারা দেননি।

আরো বিস্তারিত জানতে ,চরকাউয়া মাঝিমাল্লা সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেনের মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

এবিষয়ে বাংলাদেশ কোস্টগার্ড বি সি জি স্টেশন বরিশাল গোয়েন্দা শাখার দায়িত্বরত কর্মকর্তা জানান আমাদের টিম সর্বদা নদীতে আছি । কেউ সরকারি নির্দেশনা অমান্য করলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© 2021 - All rights Reserved - BarishalNews24
Design and Developed by Sarjan Faraby