1. gazia229@gmail.com : admin :
মোবাইলের সিম খুলল কারা? - BarishalNews24
সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০১:৪৭ পূর্বাহ্ন

মোবাইলের সিম খুলল কারা?

প্রতিবেদক:
  • প্রকাশকাল: রবিবার, ১৩ নভেম্বর, ২০২২
  • ৮৭ বার দেখা হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক::
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও কৃষি উদ্যোক্তা দুরন্ত বিপ্লবকে খুন করা হয়েছে। নিখোঁজের রাতেই তাকে ধাতব কোনো বস্তু দিয়ে মাথায় ও বুকে আঘাত করে হত্যার পর লাশ নদীতে ভাসিয়ে দেওয়া হয়েছে- এমনটাই প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হয়েছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

গত ৭ নভেম্বর সন্ধ্যায় নিখোঁজ হওয়ার পর শনিবার (১২ নভেম্বর) বিপ্লবের লাশ মেলে ফতুল্লার বুড়িগঙ্গা নদীর পাগলা ঘাট এলাকায়। এদিকে নিহত দুরন্ত বিপ্লবের মোবাইলের শেষ লোকেশন ছিল গত ৭ নভেম্বর সন্ধ্যা ৫টা ১৯ মিনিটের দিকে ঢাকার কামরাঙ্গীরচরের মুসলিমবাগ এলাকায়। তার মোবাইলটি সুইচড অফ করার আগে সিম কার্ডটি খুলে ফেলা হয়েছিল বলে একটি অসমর্থিত সূত্র হতে নিশ্চিত হওয়া গেছে। তাই বিপ্লবকে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছিল কিনা সেটিই খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা।

এদিকে নিহত দুরন্ত বিপ্লব উচ্চশিক্ষিত হয়েও জীবনের সব বাহুল্যতা ছেড়ে একজন কৃষক হতে চেয়েছিলেন। নিরাপদ খাবার উৎপাদন এবং কৃষিতে বিপ্লব ঘটানোর স্বপ্নে বিভোর এই আওয়ামী লীগ নেতা নানামুখী উদ্যোগও নিয়েছিলেন। পশু খাদ্যের জন্য সস্তা বিকল্প প্রোটিনের উৎস হিসেবে কালো সৈনিক মাছির চাষ সারা দেশে হাতেগোনা যে কয়েকজন শুরু করেছিলেন তার মধ্যে বিপ্লবের ভূমিকা ছিল অগ্রণী।

কেরানীগঞ্জের সোনামাটি এগ্রো নামে তার খামারে সেই কালো সৈনিক মাছির উৎপাদনে তিনি যুগান্তকারী সাফল্যও পেয়েছিলেন। নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে সারা দেশে বহু যুবককে তিনি কৃষিপ্রেমী হিসেবে তৈরিও করতে পেরেছিলেন।

তথ্যানুসন্ধানে জানা গেছে, শনিবার ফতুল্লার পাগলা বুড়িগঙ্গা নদীতে লাশ পাওয়ার পর নিহত দুরন্ত বিপ্লবের লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয় রোববার সকালে।

নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে লাশের ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসক ডা. মফিজ উদ্দিন প্রধান নিপুন জানিয়েছেন, বিপ্লবকে হত্যা করা হয়েছে এমন আলামতই পাওয়া গেছে। তিনি জানান, লাশের বিভিন্ন স্থানে গভীর আঘাতের চিহ্ন দেখে বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছি আমরা। লাশের মাথার পেছন দিকে আঘাতের গভীর ক্ষতচিহ্ন পাওয়া গেছে। এছাড়া বুকের ২ পাশেও আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে কোনো ধাতব বস্তু দিয়ে আঘাত করা হয়েছিল।

লাশটি ৩-৪ দিন আগের জানিয়ে তিনি বলেন, ভিসেরা রিপোর্ট পাওয়ার পর মৃত্যুর সঠিক কারণ বলা যাবে।

পাগলা নৌ-ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) শাহজাহান আলী জানিয়েছেন, শনিবার দুপুর আড়াইটার দিকে নদীর তীরে লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয় লোকজন পুলিশকে খবর দেয়। শনিবার রাত ১২টায় দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় লাশের ছবি দেখে সেটি নিখোঁজ দুরন্ত বিপ্লবের বলে শনাক্ত করেন তার ছোট বোন শাশ্বতী বিপ্লব।

শাহজাহান আলী আরও জানান, লাশটি কমপক্ষে ৪৮ থেকে ৭২ ঘণ্টা আগের ছিল এবং লাশে পচন ধরা শুরু হয়েছিল।

এদিকে নিহত বিপ্লবের ছোট বোন শাশ্বতী বিপ্লব জানিয়েছেন, ৭ নভেম্বর সন্ধ্যায় কেরানীগঞ্জের ভাড়া বাসা থেকে মোহাম্মদপুরের জাপান গার্ডেন সিটির বাসায় যাওয়ার পথে নিখোঁজ হন ভাই। এরপর থেকে তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। অনেক খোঁজাখুঁজি করেও না পেয়ে ৯ নভেম্বর আমরা দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করি। যারা ভাইয়াকে চেনেন, তারা জানেন- ও একটু বোহেমিয়ান টাইপের। কেরানীগঞ্জে ওর একটা এগ্রো ফার্ম আছে। গত কয়েক মাস যাবত ওখানেই একা একটা বাসা ভাড়া করে থাকেন। আমি আর আমার আরেক ভাইয়ের বউ মিলে কেরানীগঞ্জ গিয়েছিলাম। ওর বাসার তালা ভেঙে ঢুকে কোনোকিছু অস্বাভাবিক চোখে পড়েনি।

নিহতের ভগিনীপতি ইমরুল খান বলেন, নিহত বিপ্লব ১৯৯৬ সালে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগ থেকে অনার্স শেষ করেন। সেই সময় তিনি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক। তিনি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির কৃষি ও সমবায় বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য ছিলেন। তার পৈতৃক বাড়ি নেত্রকোনার পূর্বধলা থানার ইলাশপুর গ্রামে। তার স্ত্রী ও এক কন্যাসন্তান আছে। তার বাবা-মা রাজধানীর মোহাম্মদপুরে থাকেন এবং দুরন্ত কেরানীগঞ্জে বসবাস করতেন।

তিনি জানান, বিপ্লবকে রোববার বাদ মাগরিব ঢাকার রায়েরবাজার কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© 2021 - All rights Reserved - BarishalNews24
Bengali Bengali English English