1. gazia229@gmail.com : admin :
লাকুটিয়ায় সরকারি খাল আজাহারের দখলে! তহসিলদারকে হুমকি - BarishalNews24
শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১, ১১:২৩ অপরাহ্ন

লাকুটিয়ায় সরকারি খাল আজাহারের দখলে! তহসিলদারকে হুমকি

প্রতিবেদক:
  • প্রকাশকাল: শনিবার, ১৩ মার্চ, ২০২১
  • ৯৮ বার দেখা হয়েছে

বরিশাল নিউজ24 ডেস্ক:
বরিশাল সদর উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের লাকুটিয়া বাজার ব্রীজ সংলগ্ন সরকারী খাস জমি দখল করে দোকান ঘর নির্মান করার অভিযোগ পাওয়া গেছে ।

অভিযোগ সূত্রে জানাযায়, এক সময়ের বিএনপি নেতা আজাহার এখন সরকারী খাল দখলে মরিয়া হয়ে উঠেছে। তিনি নিজেকে স্থানীয় সাবেক বিএনপি চেয়ারম্যান সামসু ফকির আবার কাশিপুরের আ-লীগের প্রভাবশীল ব্যক্তিদের লোক দাবি করে নানা অপর্কম চালিয়ে আসছে।

লাকুটিয়া বাজারের পূর্ব পাড়ের খালের পাশে সরকারি খালের জমি দখল করে দোকান ঘর নির্মাণ করছে এই অভিযুক্ত আজাহার। আর খাল দখল দিতে তাকে সাহায্য করছেন স্থানীয় খোকন সহ একাধিক ব্যক্তি । দিঘীর সেই শত বছরের ঐতিহাসিক সরকারি খালটি ভরাট করে একপাশে একটি কারখানা ও অন্য পাশে দখল নিতে ভবন নির্মাণ কাজ চালিয়ে আসছে আজাহার।

তবে কাশিপুর ভূমি অফিসের সিনিয়র তহসিলদার রুহুল আমিন অভিযোগ করে বলেন, ইউএনও স্যারের নিদের্শে সরকারী দখলকৃত খাল উদ্ধার করতে সরেজমিনে যাই। সেখানে আজাহারের কাগজপত্র দেখতে চাইলে তার ছেলে আদু ওরফে পাবেল সহ তাদের পক্ষে লাঠিয়াল বাহিনী সাথে নিয়ে আমাদের নানা ধরনের হুমিক প্রদান করেন। পরে ঘটনাস্থল বেগতিক দেখে আমরা চলে আসি। বিষয়টি তাৎক্ষনিক ইউএনও স্যারকে জানানো হয়েছে। অন্যদিকে বরিশাল সদর উপজেলা ইউএনও অফিস থেকে এবিষয় কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানা গেছে।

এদিকে স্থানীয়দের দাবি, নির্মাণের শুরুতেই স্থানীয় জনপ্রতিনিধিকে অবহিত করলেও কোনও প্রতিকার হয়নি। কারণ আজাহার সর্বদলীয় ক্ষমতাসীন। তাদের টাকার কাছে সবাই জিম্মি হয়ে রয়েছে।

উল্লেখ্য, লাকুটিয়া সারশি দিঘীর সাথে লাকুটিয়া খালের একটি সংযোগ ছিলো। সেই খালটি ভূমিদস্যুরা ধীরে ধীরে বিভিন্ন ভূয়া কাগজ পত্র তৈরি করে দখল দিয়ে প্রায় ২০/৩০টি দোকান ঘর নির্মান করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান চালিয়ে আসছে। পরে দিঘীর শেষ প্রান্তে বাকিটুকু খাল দখল করে নির্মানধীন ভবন তৈরি করছেন রিপন ও আজাহার।

তবে এবিষয় লাকুটিয়ার স্থানীয় বাসিন্দারা সরকারি জমি রক্ষা করার জন্য বিভিন্ন দপ্তরে ২০জন স্বাক্ষরিত একটি অভিযোগ পত্র জমা দেন। তাদের দাবি যে কোন ভাবে এই শত বছরের পুরনো ঐতিহাসিক খালটি রক্ষা করতে হবে। এবিষয় জেলা প্রশাসকের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন তারা।

তবে সোনালী বেকারীর মালিক রিপন তিনি বলেন, আমি শুধু ভাড়া নিয়ে কারখানা দিয়েছি। আমি জমির মালিক না। আর বর্তমানে যে জমি নিয়ে ঝামেলা চলছে ওউ জমির মালিক আজাহার ব্যাপারী। তিনিই ভবন নির্মাণ করতেছে। আমার জমি অন্য পাশে। এখানে আমার কিছুই নাই।আমার নাম শুধু শুধু পত্রিকায় আসছে।

এদিকে ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সুমন মীর বলেন, খাল দখল করেই আজাহার পাকা ভবন নির্মান করছেন। তার আগের যে কারখানা রয়েছে সেটা ও খাল দখল করে করা হয়েছে। পদ্মা (সারশি) দিঘীর সাথে লাকুটিয়া খালটির একটি সংযোগ ছিলো। খালটি পাশে প্রায় ৬০ফুট ছিলো এবং লম্বা প্রায় ২/৩ কিলোঃ। কিন্তু বর্তমানে খালটি ভরাট করে আজাহারসহ বিভিন্ন লোক বাড়ি,কারখানা, বর্তমানে ২ফুট ও নাই খালের জমি। ঘর নির্মাণ করে দখল করে রেখেছে। আমরাও চাই শত বছরের স্মৃতি জড়ানো খালটি যেন আবার প্রাণ ফিরে পায়।

এবিষয় সরকারী খাল দখলদার অভিযুক্ত আজাহার বলেন, আমার ছেলের মনু ওরফে পাবেলের সাথে ঝামেলা হয়েছে। সে বিষয়টি তহসিলদার এর সাথে মিট হয়েছে। মাথা গরম করে ছেলেটা বাজে ব্যবহার করেছে।

অপরদিকে আজাহারের এই দখল মিশন থামাবে কে ? এমনটি প্রশ্ন স্থানীয় বাসীন্দাদের মাঝে।

তবে বরিশাল সদর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মুনিবুর রহমান বলেন, শত বছর পুরনো সরকারী খাল কেউ দখল করবে তা হবে না। খালটি উদ্ধার করার জন্য সব প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© 2021 - All rights Reserved - BarishalNews24
Design and Developed by Sarjan Faraby