1. gazia229@gmail.com : admin :
শাহান আরা বেগম ছিলেন শ্রদ্ধা-ভালোবাসার বাতিঘর - BarishalNews24
রবিবার, ২০ জুন ২০২১, ০১:২২ পূর্বাহ্ন

শাহান আরা বেগম ছিলেন শ্রদ্ধা-ভালোবাসার বাতিঘর

প্রতিবেদক:
  • প্রকাশকাল: বৃহস্পতিবার, ১০ জুন, ২০২১
  • ৭৯ বার দেখা হয়েছে

আসাদুজ্জামান :: শহীদ জননী মুক্তিযোদ্ধা সমাজ সেবক রাজনীতিক সাংস্কৃতিক ও ধার্মিক বাঙ্গালী বধূর এক বিরল দৃস্টান্ত ছিলেন শাহান আরা বেগম। স্বাধীনতা যুদ্ধে লাখো সহযোদ্ধাকে হারানোর পরে ১৯৭৫ সালের কালো রাতে ঘাতকদের নির্মম হত্যাযজ্ঞে হারিয়েছেন শিশু পুত্র শুকান্ত বাবুকে। হারিয়েছেন শ্বশুড় , শ্বাশুড়ী সহ অসংখ্য স্বজন।

ঘাতকের ছোরা বুলেটের গুলি শরীরে বহন করে আজীবন কাজ করে গেছেন মানুষের সেবায়। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাগ্নে বৌ এবং বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফুফাতো ভাই সাবেক চীপ হুইপ পার্বত্য শান্তিচুক্তি প্রতিস্ঠাকারী বর্তমান মন্ত্রী আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ এমপির সহধর্মীনি. মন্ত্রী শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত এর পুত্রবধু ও বরিশালের জননন্দিত সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহর মাতা ছিলেন শাহান আরা বেগম। ছিলোনা অহমিকা. ছিলোনা ক্ষমতার বড়াই। সারা জীবন ছিলেন অতি সাধারন মানুষের মত । তাই দলমত নির্বিশেষে সকলের কাছে তিনি ছিলেন শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার বাতিঘর।

আওয়ামী লীগের কঠিন দুর্দীনে দক্ষিন বঙ্গের নেতা কর্মীদের কষ্টের কাহন শোনার একমাত্র জায়গা ছিলো সেরনিয়াবাত পরিবার। শাহান আরা বেগমের কাছে অতি সাধারন মানুষও গিয়ে বলতেন তাদের চাহিদা ও কষ্টের কথা। ক্ষতিগ্রস্থ নিপিড়িত মানুষের শান্তনার জায়গা ছিলো ঐ ঘরটি । গোটা দক্ষিনবঙ্গ সহ সারা দেশের বিভিন্ন এলাকার নিপিড়িত মানুষের নানান সমস্যা সমাধানের পরামর্শ ও করনীয় কেন্দ্র ছিলেন তিনি। ক্ষমতার আমলেও ছিলেন একই রকম। রাজনৈতিক জীবনে কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এবং বরিশাল জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি ও নানান সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের গুরুত্বপুর্ন পদে ছিলেন ।

২০২০ সালের ৭ জুন হৃয়ন্তের ক্রীয়া বন্ধ হয়ে পরোপারে পাড়ি দেন এই মহিয়সী নারী শাহান আরা বেগম। এই খবর ছাড়িয়ে পড়লে শোক আহাজারীতে প্রকম্পিত হয় দক্ষিনবঙ্গসহ গোটা দেশ। জাতীয় সংসদে দীর্ঘ্য সময় বক্তব্য দেন সংসদনেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শোকাহত কন্ঠে শাহান আরা বেগমের ত্যাগ ও স্মৃতি চারন করেন প্রধানমন্ত্রী। নেতাকর্মী সহ বিভিন্ন পেশার মানুষের বুক ফাটা কান্নায় ভারী হয়েছিলো আকাশ বাতাস। দক্ষিনবঙ্গের প্রতিটা এলাকায় দোয়া মোনাজাত ও শোকসভা হয়েছে। মসজিদে দোয়া মোনাজাত মন্দির ও গীর্জায় প্রর্থনা. সরকারী বেসরকারী প্রতিস্ঠানেও হয় দোয়া মিলাদ। সকলেই বলেছেন শাহান আরা বেগম ছিলেন তাদের শ্রদ্ধা ভালোবাসার বাতিঘর। গত ৭ জুন প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে দলীয় শোক সভা নানান কর্মসুচী ছাড়াও এক ব্যাতিক্রম আয়োজন দেখলাম। শাহান আরা বেগমের জন্য বরিশালের সকল মসজিদে দোয়া মোনাজের উদ্দেগ নিয়েছেন মসজিদের ইমামগন ও এতিমখানা মাদরাসা গুলো।

খোজঁ নিয়ে জানা গেছে, শাহান আরা বেগম ছিলেন একজন ধার্মিক নারী। তার দীর্য্য জীবনে আলেম ওলামা ও মসজিদের ইমাম এবং এতিমদের বেশি স্নেহ করতেন। তার সন্তান বরিশাল সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ তার বাবা-মায়ের মতোই আলেম ওলামা মসজীদের ইমাম ও এতিমদেরকে ভালোবাসেন। বরিশালে এই প্রথম ইমামদের জন্য ইমাম ভবন নির্মান করার কাজ শুরু করায় সেরনিয়াবাত পরিবার আলেমদের মনি কোঠোরে আস্থার ভীত হয়ে আছেন।

সব মহলের মানুষ বলছেন. কেবল শ্রদ্ধা ভালেসায় চোখের জলে দোয়া করছেন তারা। মানুষের দোয়ায় পরোপারে ভালো থাকবেন শহীদ জননী শাহান আরা বেগম। তার করব হোক ভেহেশতের ফুল বাগিচা

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© 2021 - All rights Reserved - BarishalNews24
Design and Developed by Sarjan Faraby